পাওনাদারের বাড়িতে স্বামীর লাশ নিয়ে স্ত্রীর অবস্থান

News News

Desk

প্রকাশিত: ৬:৫৭ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৪, ২০২১

মোঃ সাইমুন ইসলাম, পটুয়াখালী জেলা প্রতিনিধিঃ

পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া উপজেলারা লতাচাপলী ইউনিয়নের দীর্ঘ দুই বছর ধরে পাওনা টাকা না দেয়ায় চিকিৎসার অভাবে সুনীল চন্দ্র দাস নামের এক ব্যক্তি মারা গেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার রাতে আলীপুরের নিজ বাড়িতে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তার মৃত্যু হয়।

পরে শনিবার সকাল নয়টা থেকে লাশ নিয়ে স্বজনরা দেনাদার ইউসুফ মুসল্লির ঘরের সামনে অবস্থান করেন। এ ঘটনাটি এলাকায় বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে।

নিহত সুনীল চন্দ্র দাসের স্ত্রী মাধুরী দাস জানান, জমি দেয়ার কথা বলে ২ বছর আগে ১১ লাখ টাকা নেয় ইউসুফ। তার স্বামীর অসুস্থতার মধ্যেও বেশ কয়েকবার টাকা দেয়ার ওয়াদা দিলেও টাকা দেননি। দীর্ঘদিন ধরে টাকা ফিরিয়ে দেয়ার বেশ কয়েকটি ওয়াদা দেন তিনি। এ নিয়ে এলাকার চেয়ারম্যানসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিরা সালিশ করলেও টাকা পাননি সুনীল দাস। পরে টাকার শোক সইতে না পেরে শুক্রবার রাতে তার মৃত্যু হয়।

এ ব্যাপারে লতাচাপলী ইউপি চেয়ারম্যান আনছার উদ্দিন মোল্লা সাংবাদিকদের জানান, নিহত সুনীল জমি কেনার জন্য ইউসুফ মুসল্লিকে টাকা দিয়েছিলেন। এ নিয়ে আমরা সালিশ বৈঠক বসলেও টাকা ফেরত দেননি। আমার জানা মতে, সুনীল অর্থাভাবে বিনা চিকিৎসায় মারা গেছে। শনিবার সকাল থেকে নিহতের স্বজনরা লাশ নিয়ে ইউসুফ মুসল্লির বাড়ির সামনে অবস্থান করেন। আমরা এ ঘটনার সুষ্ঠু সমাধানের চেষ্টা করছি।

এ বিষয়ে ইউসুফ মুসল্লির সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

মহিপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামান সাংবাদিদের জানান, ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে সুষ্ঠু সমাধানের আশ্বাস দিলে স্বজনরা লাশ ফিরিয়ে নিয়ে যায়। তবে অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।