হাজারো মানুষের সপ্নের সেতু নির্মাণের আগেই ধসে পড়লো

News News

Desk

প্রকাশিত: ৮:২২ অপরাহ্ণ, জুন ২৭, ২০২১
মোঃ সাইমুন ইসলাম, পটুয়াখালী জেলা প্রতিনিধিঃ

পটুয়াখালীর সাগরকন্যা খ্যাত কুয়াকাটার ৮নং ওয়ার্ডের দোভাষীপাড়া খালের উপর নির্মাণাধীন অবস্থায় সেতু ধসে পড়েছে।

রোববার (২৭ জুন) সকাল ৯ টার দিকে সেতুটি ধসে পড়ে। এলজিইডির আঞ্চলিক সেতু নির্মাণ প্রকল্পের অংশ হিসেবে ২ কোটি ৭০ লাখ টাকায় এই সেতু কাজ চলমান ছিলো।

স্থানীয়দের অভিযোগ, নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে কাজ করায় এমনটি হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে, ‘সকাল ৯ টার দিকে আমরা সেতু এলাকায় বিকট শব্দ শুনতে পাই। তখন গ্রামের সবাই মিলে গিয়ে দেখি পুরো সেতু ভেঙে খালে পড়ে গেছে। তবে এতে হতাহতের কোনো ঘটনা ঘটেনি।’

গ্রামের বাসিন্দা আলাউদ্দিন বলেন, ‘পুরো সেতুর মধ্যভাগে কোনও পিলার নেই। তাই ভেঙে পড়েছে বলে আমাদের ধারণা। নির্মাণ শেষ হওয়ার আগেই সেতু ভেঙে পড়ায় এর পুরো কাজ নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। আমরা এর সুষ্ঠু তদন্ত চাই।’

স্থানীয় বাসিন্দা ওমর আল সাদ্দাম মাল জানান, ‘সেতুটির কাজ যে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান পেয়েছে তারা নিম্নমানের রট, বালু ও সিমেন্ট ব্যবহার করার ফলে সেতুটি ধসে পড়েছে। সরকারের উচিত এদের বিচারের আওতায় নিয়ে আসা। সরকারের কোটি কোটি টাকা খরচ করা উন্নয়ন প্রকল্পে এমন অনিয়োম মেনে নেয়া যায় না। কর্তৃপক্ষের গাফিলতির কারণেই এমনটা হয়েছে। এ ঘটনায় দায়ীদের শাস্তি চাই।’

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান খান ট্রেডার্সের পরিচালক আল মামুনের সাথে তার মুঠোফোনে একাধিক বার যোগাযোগ করা হলে তার মুঠো ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

কুয়াকাটা পৌরসভার মেয়র জনাব আনোয়ার হাওলাদার বলেন, অত্যন্ত দুঃখের সাথে জানানো যাচ্ছে যে, আজ রবিবার সকাল আনুমানিক ৭:৪৫ ঘটিকায় কুয়াকাটা পৌরসভা অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প এর আওতায় কুয়াকাটা পৌরসভায় অনুমোদিত প্যাকেজ ০৮ নং ওয়ার্ডের বাশার মোল্লা এর বাড়ির নিকট বাস্তবায়নাধীন ২০০.০০ মিটার আরসিসি গার্ডার ব্রীজ নির্মানাধীন অবস্থায় স্লাব ভেঙ্গে যায়।
আগামী ০৫ কার্যদিবসের মধ্যে ব্রীজটি নির্মাধীন অবস্থায় ভেঙ্গে পড়ার কারণ অনুসন্ধান এবং কাজের কারিগরি মান যথাযথ পর্যবেক্ষণ সম্পন্ন করে উক্ত ব্রীজের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ‘সৈয়দ সোহেল এণ্ড মেসার্স দ্বীপ এন্টারপ্রাইজ (JV), প্রোঃ মোঃ আজাদুল ইসলাম, টাউন কালিকাপুর, পটুয়াখালী’ এর বিরুদ্ধে কুয়াকাটা পৌরসভা থেকে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
গার্ডার ব্রীজটির স্লাব ভাঙ্গনের সম্পূর্ণ ক্ষয়-ক্ষতির ক্ষতিপুরণ উক্ত ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ‘সৈয়দ সোহেল এণ্ড মেসার্স দ্বীপ এন্টারপ্রাইজ (JV), প্রোঃ মোঃ আজাদুল ইসলাম, টাউন কালিকাপুর, পটুয়াখালী’ বহন করবে।
স্বল্পতম সময়ের মধ্যে গার্ডার ব্রীজটির ভেঙে যাওয়া অংশ সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারের দ্বারা অপসারণ পূর্বক অবশিষ্ট নির্মাণ কাজ পুনরায় শুরু করা হবে।