বিদ্যুৎ লাইন বিচ্ছেদের কারণে অসহায়ত্বে ভুগছেন পোল্ট্রি ব্যবসায়ী আবু হানিফঃ বরিশাল

News News

Desk

প্রকাশিত: ১২:৩৫ পূর্বাহ্ণ, মে ২৪, ২০২১

মো: রহমাতুল্লাহ(পলাশ): হাফেজ আবু হানিফের স্বপ্ন ধ্বংস করলো পল্লী বিদ্যুৎ অফিস। বরিশালের হিজলা উপজেলাধীন মাউলতলা স্কুলের কাছে নিজ বাড়িতে দেশের বেকারত্বদুর করার জন্য একটি পোল্টি মুরগির খামার গড়ে তোলেন। মহামারি করোনা ভাইরাস ও দুর্যোগের কারনে কিছু দিন পুর্বে মুরগি মারা যাওয়ায় আর্থিক ভাবে দুর্বল হয়ে পরেন হাফেজ আবু হানিফ। তার পরও পোল্টি মুরগির খামার বন্ধ করেন নি তিনি।

হাফেজ আবু হানিফ আর্থিক ভাবে দুর্বল হওয়ায় পল্লী বিদ্যুৎ বিল প্রায় ২৬০০০ হাজার বকেয়া থাকায় আজ (২৩ মে রবিবার) বিনা নোটিশ ও সময় না দিয়ে খামারের বিদ্যুৎতিক লাইন কর্তন করায় প্রায় ৩০০ টি মুরগী মারা যায় ,প্রায় ২ কেজি ওজনের যার বাজার মুল্য ৭৫-৮০ হাজার টাকা।

হাফেজ আবু হানিফ জানান, আজ সকালে আমার কাছে পল্লী বিদ্যুৎ থেকে মোবাইলে কল করে বকেয়া বিদ্যুৎ চান আমি বলেছি স্যার আমার কিছিু দিন আগে ৫-৬ লক্ষ টাকার মুরগি মারা যাওয়ায় আর্থিক ভাবে দুর্বল হয়েছি , ৭-৮ দিন পরে মুরগি বিক্রয় করে আপনাদের সম্পুর্ন টাকা পরিষোধ করে দিব , এখন আমার কছে টাকা নাই। আমার কর্মসংস্থান ব্যাংকে লোন আছে।

আবু হানিফ আরো জানান, আমার মুরগির খামারে ১০০০ মুরগী রয়েছে। আমি দুপুর বেলা মুরগিকে খাবার দিয়ে নামাজে যাই, নামাজ শেষে খামারে এসে দেখি ফ্যান চলেনা – অন্য বাসায় বিদ্যুৎ আছে, কিন্তু আমার লাইন কাটা। খামারের মুরগী গুলো এক এক করে প্রায় ৩০০ মারা গেছে, এখন ও থেমে নেই। অত:পর পল্লী বিদ্যুৎ অফিসে জানালে তারা বলে আগে টাকা নিয়ে আসেন তারপরে লাইন লাগিয়ে দিব।

হিজলা বিদ্যুৎ অফিসের এজিএম ,কামাল হোসেন জানান, তাকে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করতে বলা হয়েছে, তিনি বিল পরিশোধ না করার কারনে বিদ্যুৎ লাইন কেটে দেয়া হয়েছে। বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করলে আবার লাইন দেয়া হবে।