কলাপাড়া উপজেলার লতাচাপলী ইউনিয়নের ব্রীজ ভেঙে বাঁশের সাঁকো

News News

Desk

প্রকাশিত: ৯:৩০ অপরাহ্ণ, মে ১, ২০২১
মোঃ সাইমুন ইসলাম, পটুয়াখালী জেলা প্রতিনিধিঃ

পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার লতাচাপলী ইউনিয়নের ফাঁসিপাড়া ব্রীজ ভেঙে পরায় বাঁশের সাঁকো ব্যবহার করে আসছে দীর্ঘদিন । ফাঁসিপাড়া (খাজুরা) আশ্রয়ণ কেন্দ্র থেকে ঢাকা-কুয়াকাটা মহাসড়কের সাথে সংযুক্ত রাস্তাটি যেন হাজারো মানুষের পাড়াপাড়ের আস্থা।ফাঁসি পাড়া আশ্রয়ন কেন্দ্রে সামনের এই রাস্তাটি দিয়ে খুব সহজে আশ্রয়নের ৬০ টি পরিবার সহ ৪ টি ওয়াডের লোকজন যাতায়াত করতে পারত।যা এখন পরিনত হয়েছে মরন ফাঁদে।তার পার্শ্বেই রয়েছে খাজুরা আশ্রয়ণ আল-মদিনা জামে মসজিদ ও ১৬৬ নং ফাঁসিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য বাঁশের সাকোটি খুবিই ঝুঁকিপূর্ণ।খালের পানি বেশী লবনাক্ত হওয়ায় ব্রীজটি ভেঙে যোগাযোগের অনুপযোগী হলেও কাঠ দিয়ে ব্যক্তিগত মেরামতের মাধ্যমে দের বছর চলাচল করে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায়। পরবর্তীতে ব্রীজটি সম্পূর্ণভাবে চলাচলের অনুপযোগী হলে, কিছু লোকের স্ব-উদ্যোগে তৈরী করে বাঁশের সাঁকো। যা এখনো পর্যন্ত বিদ্যমান। চলাচলের বিকল্প রাস্তা থাকলেও।অতি সহজে যাতায়াত করে আসছে মহাসড়কে উঠতে আশ্রয়ণের পথ দিয়ে ব্রীজ পাড় হয়ে,সংযুক্ত রাস্তাটি যেন সকলের সরল পথ।

জনসাধারণের দাবী আশ্রয়ণের সামনের এই ব্রীজটি নির্মান হয় এবং স্কুল থেকে ব্রীজ হয়ে মহাসড়ক পর্যন্ত কাচাঁরাস্তাটি পাকাকরণ হয়।

এব্যাপারে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আনসার উদ্দিন মোল্লা বলেন, কিছুদিন পূর্বে ব্রীজটির সল টেস্টের জন্য পাঠানো হয়েছে। আমি আশাবাদী অতি শীগ্রই কাজ শুরু হবে।