ঢাবিতে ‘হিজাব দিবস’ পালনকে কেন্দ্র করে ইশার উপর ছাত্র লীগের হামলা

News News

Desk

প্রকাশিত: ১১:২০ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১, ২০২১

রাজনীতি হলো হল দলীয় বা নির্দিষ্ট ব্যক্তিবর্গের মধ্যে ক্ষমতার সম্পর্কের ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত গ্রহণ বিষয়ক কর্মকাণ্ডের সমষ্টি

রাজনৈতিক নেতারা রাজনৈতিক প্রতিযোগীতায় জেতার জন্য প্রায়ই বিভিন্ন অনৈতিক ও অমানবিক পথ অবলম্বন করে এবং এতে তাদের আপওি বা সংকোচ হয় না।

এ পর্যন্ত রাজনীতির নামে আমারা দেখেছি ভিবিন্ন ছাত্র সংগঠন টেন্ডারবাজি,জমি দখল,অন্য দলীয় ছাত্র সংগঠনের উপর অমানবিক নির্যাতন,ভোট ডাকাতি,সাধারন মানুষের উপর নির্যাতন,নারীদের যৌন নির্যাতন আরো অনেক কিছু যা বলে শেষ করা সম্ভব না।বঙ্গবন্ধুর চেতনা লালন করা ছাত্র সংগঠনটি কিভাবে অন্য একটি সুষ্ঠ ধর্ম ভিওিক সংগঠেনর উপর হামলা করে সেটা আমার জানা নাই।

হিজাব একটি আরাবী শব্দ এর অর্থ আবৃত রাখা। অর্থাৎ একজন প্রাপ্তবয়স্ক নারী তার শরীরের সৌন্দর্য প্রকাশ করে এমন অংশকে ঢেকে রাখাকে হিজাব বলে।

২০১৩ সালের ১ ফেব্রুয়ারি থেকে ‘বিশ্ব হিজাব দিবস’ পালন করা শুরু হয়। সেই থেকে হাজারো মুসলিম, অমুসলিম নারী হিজাব পরে দিবসটি পালন করেন।বাংলাদেশে একটি মুসলিম দেশ হিসেবে হিজাব দিবস উপলক্ষে তেমন কোন উদ্যেগ চোখে পড়ে না।

তবে এ বছর ব্যাতিক্রম উদ্যেগ ধর্মভিওিক ছাত্র সংগঠন ইশা ছাত্র আন্দোলনের যা চোখে পড়ার মতো তারা ঢাবির রাজু ভাস্কর্যের সামনে ফ্যাস্টুন লাগায় যেখানে নারীদের হিজাব পড়তে অনুপ্রেরণা দেয়।ফেস্টুনে লেখা ছিলো “হিজাব পরিহিতদের সাথে অসৌজন্যমূলক ও হয়রানি পুরোপুরি বন্ধ করতে হবে”ইত্যাদি।

কিন্তু হিাজাব দিবসে ব্যানার টানানোর কারনে ছাত্রলীগ নামের ছাত্র সংগঠন ঢাবি ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের নেতাকর্মীদের উপর অমানবিক নির্যাতন ও হামলা করে।যেখান উচিত ছিলো ইশার মতো অনন্য সংগঠনগুলিরও হিজাব দিবস উপলক্ষে ভিবিন্ন কর্মসূচি পালন করা কিন্তু আমরা তার ব্যাতিক্রম দেখেছি।।

আমাদের দেশের রাজনীতি এখন প্রতিশোধ, প্রতিহিংসা আর দুর্নীতির আবর্তে ঘুরপাক খাচ্ছে।সমাজ ও দেশকে করছে কলুষিত। কলুষিত করছে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে।

যাইহোক রাজনীতির প্রসঙ্গ বাদ দিলাম।মুসিলম ঐতিহ্য হিসেবে হিজাব দিবস মুসলিমরা পালন করবে না কে করবে?আর এ ব্যাপারে একটি ধর্মভিওিক সংগঠন অনুপ্রেরণা দিবে এটা কী সাভাবিক না।আমি রাজনীতি কেনো করছি দেশের মানুষের জন্য না নিজের জন্য।

হিজাব দিবস পালন করায় ইশার উপর যে নির্যাতন করা হয়েছে আমরা এর তিব্রনিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

আসুন আমরা সভাই কাঁধে,কাঁধ মিলিয়ে এক সাথে কাজ করি।দেশকে আর একধাপ এগিয়ে নিয়ে যাই।।সকলেরইতো সমান অধিকার।।

মোঃরুহুল আমীন।
সাধারণ সম্পাদক ইশা ছাত্র আন্দোলন,জাগুয়া ইউনিয়ন শাখা