চলে গেলেন বিশ্বের সাবেক এক নম্বর ব্যাটসম্যান

News News

Desk

প্রকাশিত: ২:০৪ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০২১

৯২ বছর বয়সে সোমবার মারা গেছেন ম্যাকডোনাল্ড। ১৯৫২ সাল থেকে ১৯৬১ পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ৪৭ টেস্ট খেলেন এই ওপেনার।

৫ সেঞ্চুরি ও ১৭ ফিফটিতে তার টেস্ট রান ৩ হাজার ১০৭। গড় ৩৯.৩২। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ১১ হাজার ৩৭৫ রান ২৯ সেঞ্চুরিতে।

তবে পরিসংখ্যানে তাকে ফুটিয়ে তোলা যায় সামান্যই। হেলমেট-পূর্ব যুগে ফাস্ট বোলারদের সামনে সব ব্যাটসম্যানেরই ছিল কঠিন পরীক্ষা। সেই পরীক্ষায় ম্যাকডোনাল্ডকে মনে করা হয় ইতিহাসের সবচেয়ে সাহসী সৈনিকদের একজন। ওয়েস হল, ফ্র্যাঙ্ক টাইসন, ফ্রেড ট্রুম্যান, ব্রায়ান স্টাথামের মতো ভয়ঙ্কর ফাস্ট বোলারদের তিনি সামলেছেন দারুণ দক্ষতায়। পাশাপাশি স্পিনেও তার টেকনিক ছিল ভালো। তার সেরা দুটি সিরিজ ছিল ১৯৫৫ সালের ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর ও দেশের মাটিতে ১৯৫৮-৫৯ অ্যাশেজ। ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে সিরিজে ২ সেঞ্চুরিতে তার রান ছিল ৬৪.১৪ গড়ে ৪৪৯। ইংলিশদের বিপক্ষে সিরিজে ২ সেঞ্চুরিতে ৫১৯ রান করেন ৬৪.৮৭ গড়ে।

 

ম্যাকডোনাল্ড ছিলেন ভয়ডরহীন এক ওপেনার। ছবি : এসিএ টুইটার।

ওই অ্যাশেজে সাফল্যের পর ১৯৫৯ সালের অগাস্টে তার জায়গা হয় আইসিসি টেস্ট ব্যাটসম্যানদের র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে। ওই বছর রিচি বেনোর অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ঢাকাতেও টেস্ট খেলে গেছেন ম্যাকডোনাল্ড। সেই ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়ার ৮ উইকেটের জয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে অপরাজিত থাকেন ৪৪ রানে।

ম্যাকডোনাল্ডের মৃত্যুতে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী আর্ল এডিংসের প্রতিক্রিয়ায় মিশে থাকল হার না মানা মানসিকতার কথা।

“ ভিক্টোরিয়া ও অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটের কিংবদন্তি হিসেবে সবসময় স্মরণীয় হয়ে থাকবেন কলিন। ফাস্ট বোলারদের সামনে তিনি ছিলেন ভয়ডরহীন, স্পিনের বিপক্ষেও স্কিল ছিল দুর্দান্ত। আন্তর্জাতিক ও রাজ্য পর্যায়ে এবং ক্লাব ক্রিকেটে তার অসাধারণ সেবার জন্য অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট সমৃদ্ধ হয়েছে।”