জীবনযুদ্ধে ক্লান্ত আঃ মান্নান গাজী দানবীরদের সহযোগিতা কামনা করছেন

News News

Desk

প্রকাশিত: ১১:৫৩ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২১, ২০২০
মোঃ সাইমুন ইসলাম, পটুয়াখালী জেলা প্রতিনিধি:

কলাপাড়া উপজেলার অন্তর্গত চম্পাপুর ইউনিয়নের চালিতাবুনিয়া গ্রামের করমজাতলী বাঁধের পাশে আঃ মন্নান গাজী (মোনা গাজী) দীর্ঘ ৪০বছর যাবৎ বসবাস করে আসছেন।সর্বনাশা রামনাবাদ নদীর করাল গ্রাসে বিলীন হওয়ার পথে নিজের বসত ভিটা।

স্ত্রী মনোয়ারা বেগম একমাত্র ছেলে গাজী রহমান মানসিক ভারসাম্য এবং নাতি সুবর্ণা অন্ধ। সংসারে ৬ সদস্যদের মধ্যে বৃদ্ধা মন্নান গাজি সংসারের সব খরচ বহন করে যাচ্ছেন। কলাপাড়া খবর গ্রুপে দেখা যায় বৃদ্ধার মেরদন্ডতে সমস্যা মাথা সোজা করতে না পাড়ায় মেরদন্ডের উপরে মাছের পাত্র নিয়ে হাতে লাঠিভর দিয়ে হাটঁতে দেখা যায়।ছবিটি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ভাইরাল হয় হাজার মানুষের বিভেগ নারা দায় অধিকাংশ মানুষের চাওয়া বৃদ্ধার একটু মাথা গোজাঁর ঠাই দেওয়া হোক।

সরকারের দ্বায়িত্বপ্রাপ্তদের কাছে বিনীত আবেদন জানাচ্ছেন একটি ঘরের ব্যবস্হা করার জন্য।

মন্নান গাজী, বলেন আমি বয়সের ভারে ক্লান্ত নিজেই হাটঁতে পাড়িনা লাঠিভর দিয়ে চলতে হয় আমার পরিবারের সবাই অচল তাই দায়িত্ব আমার কাধে রয়ে গেল। এই জীবন সংসারের তরী আর বইতে পারছিনা। বয়সের ভারে আমার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে গিয়েছে। তাই শরীরে সব সময় জ্বালাপোড়া করে তবুও আমি সংগ্রাম করে যাচ্ছি জীবিকার তাগিদে।

এই দুংসময়ে আমি যদি সরকারি অনুদানের একটা অংশ আমি পেতাম কিছুটা হলে ও স্বস্তির নিংশ্বাস নেওয়া যেত আমার এই দুঃসময়ে পাশে কেউ নেই। সরকারি অনুদান পেলে বা ত্রান পেলে কষ্টটা লাঘব হতো। কিছুটা স্বস্তি পেতাম। অভাবি সংসারে আমি অসহায়।