মুসলিমবিদ্বেষী সুর নরম করলেন ফরাসী প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রঁন

News News

Desk

প্রকাশিত: ৩:৩৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১, ২০২০

ফ্রান্সে পরপর হামলার ঘটনায় এবার মহানবীর ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশে আপত্তির কথা জানিয়েছেন ম্যাক্রঁনও। এমন কর্মকান্ডে ম্যাক্রঁন প্রশাসনের উস্কানি ছিলো না বলেও নিশ্চিত করেন তিনি।

ফরাসি প্রেসিডেন্ট বলেন, ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন করা ফ্রান্সের কোনও সরকারি প্রকল্প বা উদ্যোগ ছিল না। এটি ছিল একটি বেসরকারি স্বাধীন ও স্বতন্ত্র সংবাদপত্রের কাজ। পত্রিকাগুলো সরকারের অনুগত নয়। কার্টুন এঁকে রাসুল (সা.)-এর অবমাননা করায় মুসলমানদের অনুভূতি কেমন হতে পারে, তা আমি বুঝতে পারি। তাদের অনুভূতিকে আমি শ্রদ্ধা করি। তবে এই মুহূর্তে আমার ভূমিকা কী, সেটা অবশ্যই আপনাকে বুঝতে হবে।

ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বলেন, এখন দুইটি জিনিস করতে হবে। শান্তি প্রচার করা এবং এই অধিকারগুলো রক্ষা করা। আমি সব সময় আমার দেশে কথা বলার, লেখার, চিন্তাভাবনা করার ও ছবি আঁকার স্বাধীনতা রক্ষা করবো। তবে মহানবী (সা.)-এর কার্টুন আঁকাকে সমর্থন করেন না বলেও দাবি করেন ম্যাক্রোঁ।

ফরাসি প্রেসিডেন্ট বলেন, তার সরকার এই ব্যঙ্গচিত্র আঁকাকে সমর্থন করবে না বলে জোর দিয়েছিল। তবে তার কথাগুলো বিকৃতভাবে উপস্থাপিত হওয়ায় মানুষ মনে করেছে, তিনিও এসব কর্মকাণ্ড সমর্থন করেন।

ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বলেন, তিনি ‘উগ্রপন্থী ইসলাম’-এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ের চেষ্টা করছেন যা সব মানুষ, বিশেষ করে মুসলমানদের জন্য হুমকি।

তিনি বলেন, ইসলামকে যারা বিকৃত করে তাদের আচরণেই মুসলমানরা সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

ফরাসি প্রেসিডেন্ট বলেন, আজ বিশ্বে এমন কিছু লোক আছে যারা ইসলামকে বিকৃত করে। তার ধর্মের নামে খুন করে, জবাই করে। কিছু চরমপন্থী ব্যক্তি ও সংগঠন ইসলামের নামে সহিংসতা তৈরি করছে। অবশ্যই এটি ইসলামের জন্য একটি সমস্যা। কেননা, মুসলিমরাই এর প্রধান শিকার। সন্ত্রাসবাদের শিকার ব্যক্তিদের ৮০ ভাগেরও বেশি মুসলিম। এটি আমাদের সবার জন্যই সমস্যা।

অন্যদিকে ফ্রান্সে বাংলাদেশ ও পাকিস্তানী অভিবাসী প্রবেশে নিষেধাঙ্গা জারির প্রস্তাব করেন দেশটির রাজনীতিবিদ মেরিন লে পেন।