লালমনিরহাটে গণপিটুনিতে মৃত্যুর সুষ্ঠু তদন্ত চায় ইসা ছাত্র আন্দোলন

News News

Desk

প্রকাশিত: ১১:৩৫ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৩০, ২০২০

লালমনিরহাটের গণপিটুনি ও পুড়িয়ে হত্যাকান্ডের সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের দ্রুত শাস্তির আওতায় আনতে হবে -ইশা ছাত্র আন্দোলন, ঢাবি শাখা।

আজ শুক্রবার (৩০ অক্টোবর) জুমা’র নামাজের পূর্বে লালমনিরহাট পাটগ্রামে অজ্ঞাত ব্যক্তিকে গণপিটুনি ও পুড়িয়ে হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে প্রতিবাদ মিছিল করেছে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন,ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা। প্রতিবাদী মিছিলটি শাহবাগ থেকে শুরু হয়ে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে এসে সভাপতির সমাপনী বক্তব্যের মাধ্যমে শেষ হয়।

আজকের মিছিল পরবর্তী সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় স্কুল সম্পাদক মাহমুদুল হাসান। তিনি বলেন, গণপিটুনি ও পুড়িয়ে হত্যাকান্ডের মত পৈশাচিক ও বর্বরোচিত হত্যাকাণ্ড ইসলাম কখনোই সমর্থন করেনা। লালমনিরহাটের এই হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িতদের সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানাচ্ছি।

তিনি আরো বলেন, লালমনিরহাটের এই হত্যাকাণ্ড একটি গুজবের উপর ভিত্তি করে সংঘটিত হয়েছে। বিগত দুই দশকের রাষ্ট্রীয় ফ্যাসিবাদ, বিচারহীনতা ও রাষ্ট্রীয় বাহিনীর দীর্ঘ দিনের বিচার বহির্ভূত হত্যাকান্ডের সংস্কৃতি আজ দেশব্যাপী সাধারণ জনগণের মধ্যে প্রভাব পড়েছে। বিশেষ করে বিভিন্ন গুজবকে কেন্দ্র করে গণপিটুনিতে হত্যা করা সামাজিকভাবে বৈধ বিষয়ে পরিণত হয়েছে। এজন্য চলমান রাষ্ট্রীয় ফ্যাসিবাদের মাধ্যমে বিচার বহির্ভূত হত্যাকান্ড ও দীর্ঘদিনের বিচারহীনতার সংস্কৃতিই দ্বায়ী।

এই ঘটনায় কে বা কারা এর সাথে জড়িত তা দ্রুত বের করতে প্রশাসনকে আহবান জানান। পাশাপাশি এই ঘটনা সংঘটিত হওয়ার পিছনে প্রশাসনের দায় আছে বলে দাবী করে তিনি বলেন, সঠিক সময়ে ঘটনাস্থলে পুলিশের হস্তক্ষেপ না থাকায় এরকম বর্বর, অমানবিক ন্যাক্যারজনক ঘটনা ঘটেছে।

আজকের প্রতিবাদ মিছিলে আরও উপস্থিত ছিলেন ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক মোঃ আল আমীন, সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়াসিন আরাফাত, প্রশিক্ষণ সম্পাদক খায়রুল আহসান মারজান সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।