সিরাজগঞ্জে প্রয়াত নেতা মোহাম্মদ নাসিমের স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত

News News

Desk

প্রকাশিত: ১২:৪৪ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২৯, ২০২০
এসএমএ কামাল পারভেজ, সিনিয়র রিপোর্টার:

সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য, ১৪ দলের সমন্বয়ক,সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এর স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ বুধবার (২৮অক্টোবর’২০ইং) বিকেলে শহরের শহীদ এম, মনসুর আলী অডিটোরিয়ামে এই স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, সাবেকমন্ত্রী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল লতিফ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে এবং জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক শামছুজ্জামান আলোর সঞ্চালনায় উক্ত স্মরণ সভায় প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন, আওয়ামী লীগের রাজশাহী বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এস, এম কামাল হোসেন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্যে রাখেন,কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা, নির্বাহী সদস্য প্রফেসর মেরিনা জাহান কবিতা, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডাঃ মোঃ হাবিবে মিল্লাত মুন্না এমপি, আব্দুল মমিন মন্ডল এমপি, সহ-সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা আবু ইউসুফ সূর্য্য, বীরমুক্তিযোদ্ধা কে, এম হোসেন আলী হাসান, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মনোয়ার হোসেন বিপুল, কেন্দ্রীয় যুব মহিলা লীগের যুগ্ম-সম্পাদক জেদ্দা পারভীন রিমি, যুগ্ন -সম্পাদক আব্দুস সামাদ তালুকদার

স্মরণ সভায় সন্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে আরও বক্তব্য রাখেন, রায়গঞ্জ-তাড়াশ-সলঙ্গা আসনের সংসদ সদস্য ডাঃ আব্দুল আজিজ , সাবেক এমপি গাজী ম, ম আমজাদ হোসেন মিলন, সাবেক এমপি শফিকুল ইসলাম শফি, প্রয়াত নেতা মোহাম্মদ নাসিমের সুযোগ্যপুত্র সাবেক এমপি প্রকৌশলী তানভির শাকিল জয়, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এ্যাডঃ বিমল কুমার দাস, মোস্তফা কামাল খান, এ্যাডঃ আব্দুর রহমান, পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি হেলাল উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক দানিউল হক মোল্লা।

বক্তারা বলেন, পিতা শহীদ এম, মনসুর আলী’র মতই আওয়ামী লীগ ও শেখ হাসিনার প্রশ্নে আপোষহীন ছিলেন মোহাম্মদ নাসিম।

তার বাবা বঙ্গবন্ধুর সাথে বিশ্বাস ঘাতকতা না করে মৃত্যুকে আলিঙ্গন করে নিয়েছেন। মোহাম্মদ নাসিমও বাবার মতো আওয়ামী লীগ ও শেখ হাসিনার প্রশ্নে কোনদিন আপোষ করেননি। তিনি ছিলেন কর্মীবান্ধব একজন নির্ভীক রাজনীতিক। গণতান্ত্রিক আন্দোলনে রাজপথে পুলিশের লাঠিপেটা খেয়েও তাকে কেউ লক্ষ্যচ্যুত করতে পারেনি। এ কারণেই তিনি জনগণের আস্থা,বিশ্বাস আর ভালোবাসার বাতিঘরে পরিনত হয়েছিলেন। তার মৃত্যুতে দেশ একজন পরীক্ষিত, ত্যাগী এবং নিঃস্বার্থ জননেতাকে হারিয়েছে।