যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে যাচ্ছেন সাকিব আল হাসান

News News

Desk

প্রকাশিত: ১০:১৬ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২, ২০২০

করোনার পর শ্রীলংকা সফর দিয়ে ক্রিকেটে ফিরতে চেয়েছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। কিন্তু কোয়ারেন্টিন-জটিলতায় শ্রীলংকায় আপাতত টাইগারদের সফরটাই যে হচ্ছে না। এ সফর দিয়েই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার অপেক্ষায় ছিলেন নিষেধাজ্ঞায় থাকা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। তার ক্রিকেটে ফেরার অপেক্ষা আরও বাড়ল। এ সফর হলে ২৯ অক্টোবরের পরই জাতীয় দলের জার্সিতে দেখা যেত সাকিবকে। আপাতত সেই সুযোগ না থাকায় যুক্তরাষ্ট্রে পরিবারের কাছে ফেরার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। তবে পরিবারের কাছে ফেরার আগে নতুন ব্যবসায় নাম লিখিয়েছেন সাকিব। সাকিব আল হাসানের মা, স্ত্রী ও সন্তানরা রয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রে। তাদের রেখে এ অলরাউন্ডার দেশে এসেছিলেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিজেকে ফেরানোর প্রস্তুতি নিতে। কিন্তু বাংলাদেশ দলের শ্রীলংকা সফর স্থগিত হয়ে যাওয়ায় সাকিব ফিরে যাচ্ছেন মার্কিন মুলুকে নিজের পরিবারের কাছে। পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার রাতে রওনা হওয়ার কথা সাকিবের। রাত ৩টা ৪৫ মিনিটে সাকিবের যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লাইট। ২৯ অক্টোবর নিষেধাজ্ঞা শেষ হওয়ার পর ঘরোয়া ক্রিকেট ও জাতীয় দলের ট্রেনিংয়ে যোগ দেবেন দেশসেরা এই অলরাউন্ডার। এদিকে দেশে করোনার প্রকোপ শুরু হওয়ার আগে যুক্তরাষ্ট্রে পরিবারের কাছে গিয়েছিলেন সাকিব। তার সহধর্মিণী উম্মে আহমেদ শিশিরের ঘর আলো করে গত ২৪ এপ্রিল এসেছে দ্বিতীয় কন্যা সন্তান। এর আগে তারকা দম্পতির কোলজুড়ে ২০১৫ সালের ৯ নভেম্বর আসে প্রথম কন্যা আলাইনা হাসান অব্রি। নিষেধাজ্ঞা শেষ হওয়ার পরপরই জাতীয় দলে ঢোকার জন্য প্রায় সাত মাস পর গত ২ সেপ্টেম্বর দেশে আসেন সাকিব। ব্যক্তিগত উদ্যোগে বিকেএসপিতে শুরু করেন ট্রেনিং। সেখানে কোয়ারেন্টিনের পাশাপাশি চলে সাকিবের ফিটনেস এবং স্কিল ট্রেনিং। বিকেএসপিতে সাকিব পাশে পান শৈশবের দুই কোচ নাজমুল আবেদীন ফাহিম ও মোহাম্মদ সালাউদ্দিনকে। তাদের অধীনে প্রায় এক মাস ট্রেনিংয়ের পর বিরতি দিলেন সাকিব। শ্রীলংকা সফর পিছিয়ে না গেলে এ ট্রেনিং আরও লম্বা হতো। বিকেএসপিতে এই এক মাসে অনুশীলনে কী কী কাজ করেছেন সেটি সবার কাছেই অজানা। সাকিব নিজেই তার বিকেএসপির কোচদের অনুরোধ করেছেন সব গোপন রাখতে। অনুশীলনের ছবি বা ভিডিও ধারণে ছিল নিষেধাজ্ঞা। বিকেএসপিতে মিডিয়া কর্মীদের প্রবেশাধিকারও সীমিত করা হয়েছিল। গত অক্টোবরে জুয়াড়ির কাছ থেকে পাওয়া তথ্য গোপন করায় এক বছরের জন্য সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হন সাকিব। তিনি আগামী ২৯ অক্টোবর থেকে আবারও মাঠে ফিরতে পারবেন। এদিকে দেশে এসে রেস্টুরেন্টের পর নতুন ব্যবসায় নাম লেখালেন সাকিব। ক্রিকেট খেলার বাইরে এতদিন ব্যক্তিগত রেস্টুরেন্টের ব্যবসা করে আসছিলেন তিনি। এবার নতুন আরও একটি ব্যবসায় নাম লেখালেন। টু্যরস অ্যান্ড ট্রাভেলস ব্যবসায় নাম লিখিয়েছেন টাইগার অলরাউন্ডার। বুধবার সাকিব নিজেই পরিচালক হিসেবে এসএএইচ সেভেন্টি ফাইভ টু্যরস অ্যান্ড ট্রাভেল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেডের উদ্বোধন করেছেন। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় এসএএইচ সেভেন্টি ফাইভ টু্যরস অ্যান্ড ট্রাভেল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেডের উদ্বোধন করতে রাজধানীর ফকিরাপুলে আসেন সাকিব।