জোর করে বাল্য বিবাহ করিয়ে দিলেন প্রতিবেশিরা!

News News

Desk

প্রকাশিত: ১১:০৯ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২০

পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলার আমখোলা ইউনিয়নের ভাংরা গ্রামের অসহায় দরিদ্র মোঃ মোসারেফ ডাকুয়ার ছেলে মোঃ নজরুল ডাকুয়া(১৭) কে একই গ্রামের আঃ রহমান এর মেয়ে মোসাঃ শিরিনা বেগম (১৩) এর সাথে জোর করে বাল্য বিবাহ করিয়ে দিলেন প্রতিবেশীরা।

মোঃ নজরুল ডাকুয়া (১৭) ও তার পরিবারের লোকজনের অভিযোগ সূত্রে জানা যায়,

গত ০৭/০৯/২০২০ ইং আনুমানিক ১০ টার সময় প্রতিবেশী মোসাঃ শিরিনা এর মামাতো ভাই মোঃ ইব্রাহিম, মোঃ ইমরান, মোসাঃ শিরিনা বেগম ঘুরতে যাওয়ার কথা বলে পটুয়াখালী নিয়ে যায়। পটুয়াখালী হেতালিয়া বাধঁঘাটের কাছে নিয়া শিরিনাদের আত্মীয় মোঃ নজরুল সহ অজ্ঞাত ৪/৫ জন যুবক মারধরের ভয়-ভীতি দেখিয়ে জোর করে আমাকে পটুয়াখালী নোটারী পাকলিক কার্যালয় এফিডেভিট এর মাধ্যমে বিবাহ সম্পর্ণ করায়। মোঃ নজরুল ডাকুয়া (১৭) প্রতিবেদকের কাছে আরও বলেন। সরকারী ভাবে আমার বিবাহর বয়স হয় নাই, তারপরেও তারা বিভিন্ন ভয়-ভীতি দেখিয়ে বিবাহ করায়।

ঘটনার পর আমি বাড়িতে এসে বিষয়টি আমি আমার পরিবারের লোকজনকে জানাই। এখন শিরিনার পরিবারের লোকজন এবং আত্মীয়-স্বজন এই বিয়ে মেনে নেওয়ার জন্য আমাকে এবং আমার পরিবারের লোকজনকে মেনে নেওয়ার জন্য বিভিন্ন ধরনের হুমকি দিচ্ছে। বিয়ে মেনে না নিলে ভয়-ভীতি, খুন যখমের হুমকি দেয়। ঘটনাটি আমার ভবিষ্যতের জন্য খুব খারাব। এই ঘটনাটি আমার জীবনকে ধ্বংসের পথে নিয়ে যাচ্ছে।

এ ঘটনার বিষয়ে আমি গলাচিপা থানায় একটি সাধারণ ডায়রী করেছি। গলাচিপা থানার সাধারণ ডায়রী নং- ১১২২। এ সর্ম্পকে শিারনা বেগম এবং তার আত্মীয় নজরুল কে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তারা বলেন, আমরা জোর করে বিবাহ করিয়ে দিয়েছি এ কথা সঠিক নয়।