আলোচনাতেই চীন সীমান্তে উত্তেজনা প্রশমন সম্ভব: ভারতীয় সেনাপ্রধান।

News News

Desk

প্রকাশিত: ৯:৫৬ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৪, ২০২০
অনলাইন ডেস্ক , >> রয়টার্স

লাদাখ ও অরুণাচলে চীনের সঙ্গে সীমান্তে যে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে তা আলোচনার মাধ্যমে সমাধান সম্ভব বলে মনে করেন ভারতের সেনাপ্রধান জেনারেল মনোজ মুকুন্দ নরভানে।

গত জুনে লাদাখ সীমান্তে দুই প্রতিবেশী দেশের সেনাদের কয়েক দশকের মধ্যে সবচেয়ে প্রাণঘাতী সংঘাতের পর থেকেই সেখানে উত্তেজনা বিরাজ করছে। উভয় দেশই সীমান্তে শক্তি বৃদ্ধি করেছে।

বৃহস্পতিবার লাদাখ পরিদর্শনে গেছেন সেনাপ্রধান জেনারেল মনোজ। সেখানে তিনি বার্তা সংস্থা রয়টার্সের অংশীদার এএনআই কে বলেন, ‘‘আমরা নিশ্চিত, আলোচনার মাধ্যমেই এই সমস্যার পূর্ণ সমাধান সম্ভব। যদিও এলএসি জুড়ে এখনো পরিস্থিতি কিছুটা উত্তেজনা বিরাজ করছে।”

ভারতের অভিযোগ, চীনের সেনারা লাদাখের ডি-ফ্যাক্ট বর্ডার লাইন অব কন্ট্রোল (এলএসি) অতিক্রম করে দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক চুক্তি লঙ্ঘন করেছে।

ভবিষ্যতে চীনের যেকানো ধরণের অনুপ্রবেশ রুখে দিতে লাদাখ সীমান্তের সংবেদনশীল কয়েকটি এলাকায় বাড়তি সেনা মোতায়েনের কথাও জানান ভারতীয় সেনাপ্রধান।

সেনা কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে আনন্দবাজার পত্রিকা জানায়, লাদাখে দুই দিনের সফরে এসে জেনারেল মনোজ বৃহস্পতিবার লেহ্ তে সেনা কর্মকর্তাদের সঙ্গে এলএসি পরিস্থিতি, বিশেষ করে প্যাংগংয়ের বর্তমান অবস্থা নিয়ে আলোচনা করেন।

শুক্রবার তিনি বলেন, ‘‘সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে বাড়তি সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। আমাদের সেনারা এলএসি বরাবরই অবস্থান করছে।”

এদিকে চীনের অভিযোগ, গত মাসের শেষ দিকে ভারতীয় সেনারা এলএসি তে অনুপ্রবেশ করেছিল।

দিল্লিতে চীনের দূতাবাসের মুখপাত্র বলেন, ‘‘ওই অনুপ্রবেশ চীনা ভূখণ্ডের সার্বভৌমত্বের গুরুতর লঙ্ঘন।”

চীন-ভারত উভয় পরমাণু শক্তিধর দেশ। সীমান্তে উত্তেজনা দেখা দিলেও উভয় সরকারই সব সময় আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের উপর জোর দিয়ে যাচ্ছেন।

এ সপ্তাহে একাধিকবার দুই দেশের সেনা কর্মকর্তাদের পতাকা-বৈঠক হয়েছে।

ভারত এবং চীনের সংবাদমাধ্যমে শুক্রবার রাশিয়ার মস্কোয় দুই দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রীদের সম্ভাব্য বৈঠকের খবরও বেরিয়েছে।

সাংহাই কোঅপারেশন অর্গানাইজেশন-র একটি সম্মেলনে যোগ দিতে দুই নেতা মস্কো গেছেন।

এক টুইটে চীনের গ্লোবাল টাইমস পত্রিকার প্রধান সম্পাদক হু জাইঝিন বলেন, ‘‘আমি যতদূর জানি, দুই পক্ষের মধ্যে বৈঠক আয়োজনের কাজ বেশ খানিকটা এগিয়েছে। উই ফ্যাং ও রাজনাথ সিংহের মধ্যে বৈঠক হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি।’’

তবে ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র বলেন, তার কাছে এ ধরনের বৈঠক আয়োজনের বিষয়ে কোনো তথ্য নেই।

যদি বৈঠক হয় তবে গত জুনের সীমান্ত সংঘাতের পর উভয় দেশের শীর্ঘ কর্মকর্তাদের মধ্যে এটাই প্রথম বৈঠক হবে।

লাদাখের গালওয়ান ভ্যালিতে ১৫ জুনের ওই সংঘাতে ‍অন্তত ২০ ভারতীয় সেনা নিহত হন। চীনও তাদের সেনাদের হতাহত হওয়ার কথা স্বীকার করেছে, যদিও তারা সংখ্যা প্রকাশ করেনি। কোন আগ্নেয়াস্ত্রের ব্যবহার ছাড়াই ওই সংঘাতে এত সেনার মৃত্যু হয়।