বাকেরগঞ্জের কবাই ইউনিয়নের ভূমি দখলে পেশাদার জাকির গ্রেফতার।

News News

Desk

প্রকাশিত: ১০:৪৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১, ২০২০

আনোয়ার হোসেন : ‘আমার জায়গা আমার জমি ঘর বানাইয়া আমি রই, আমি তো সেই জমির মালিক নই।’

কথাটি বললেন বাকেরগঞ্জের ৭নং কবাই ইউনিয়নের সানজিদা আক্তার লিজা (৩৫)। একটু থেমে তিনি আরও বলেন, আমার স্বামী ঢাকায় পুলিশে চাকুরী করে সে পৈত্রিক সূত্রে কবাই ইউনিয়নে ১৪৫ নং হানুয়া হাল ৭১ নং দাগের ১৪ শতাংশ জমির মালিক। জুন মাসে হঠাৎ একদল লোক এসে অন্য এক ব্যক্তির জায়গা দাবি করে জায়গা ছেড়ে চলে যেতে বলে আমাকে। পরে উপজেলা ভূমি অফিসে গিয়ে জানতে পারি ওই মৌজায় মোট ৯৪ শতাংশ জমি থেকে ১ শতাংশ জমি জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে ভূমিদস্যু জাকির জমির নামজারি করেছেন।’

শুধু সানজিদা আক্তার লিজা নন, বাকেরগঞ্জের কবাই ইউনিয়নে সর্বত্রই অন্যর ভূমি সন্ত্রাসীদের দখলে অনেকটাই নিয়মিত ঘটনা। ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, এলাকায় একটি ভুমি দস্যু সন্ত্রাসী চক্র আছে, যাদের সঙ্গে ইউনিয়নের কিছু অসাধু লোক আঁতাত করে বিপদে ফেলছে সাধারণ মানুষকে। ভূমি দস্যুদের শিকার হয়ে নিজের বসতবাড়ি রক্ষা করতে মাসের পর মাস ছোটাছুটি করতে হচ্ছে ভুক্তভোগীদের।
বাকেরগঞ্জ পাল্লা দিয়ে হচ্ছে সড়ক উন্নয়ন, বাড়ছে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান, বাড়ছে জনসংখ্যাও। কিন্তু বাড়ছে না জমির পরিমাণ। ফলে অতিরিক্ত চাহিদার কারণে গত এক যুগে জমির দাম বেড়েছে কয়েকগুণ। ভূমি দস্যু চক্রও সক্রিয় হয়ে উঠছে দিন দিন।
ভুক্তভোগীরা জানান, কোথাও দলীয় পরিচয়ে, কোথাও প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্তার আত্মীয়স্বজন পরিচয়ে, আবার পেশিশক্তির জোরে প্রতিনিয়ত দখল করে নিচ্ছে সরকারি খাস জমি, খাল-বিল, নদী-নালাসহ মানুষের ব্যক্তিগত ও পৈতৃক সম্পত্তি। আবার জমির সিএস ও এসএ মূলে জমির মালিকানা থাকলেও ভূমি অফিসের কর্মকর্তাদের যোগ সাজানো আরএস নামজারি করে কিংবা জাল দলিল দেখিয়ে, একের পর এক জমি দখল করে যাচ্ছে জাকির সন্ত্রাসী বাহীনির ভূমিদস্যু চক্র। এ ছাড়া প্রভাবশালী ভূমিদস্যুদের পৃষ্ঠপোষকতায় গড়ে উঠেছে পেশাদার ভূমি সন্ত্রাসী চক্র। যারা সন্ত্রাসী কর্মকা- চালিয়ে দখল করে নেয় নিরীহদের জমি। এ দখলকে কেন্দ্র করে বাকেরগঞ্জ প্রায়ই ঘটছে সন্ত্রাস, এমনকি হত্যাকা- পর্যন্ত।
পেশাদার ভূমিদস্যু জাকিরের দাপট, ভূমিদস্যু জাকির চক্রের হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছে না মসজিদ, মন্দির, স্কুল-কলেজসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানও। জাকির ভূমিদস্যু চক্রের শতাধিক সদস্য বাকেরগঞ্জের বিভিন্ন এলাকা দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। অনুসন্ধানে জানা যায়, বাকেরগঞ্জ ৭নং কবাই ইউনিয়নে হানুয়া গ্রামে চিহ্নিত ভূমিদস্যুর জায়নাল খানের ছেলে জাকির খান (৪০), সেকান্দার আলী খানের ছেলে মোঃ সোহেল খান (৪০), নাছির খানের ছেলে মোঃ নিরব খান (১৮), মোঃ দেলোয়ার খানের ছেলে মোঃ ফিরোজ খান( ৩৮), আঃ মজিদ খানের ছেলে মোঃ পলাশ খান(২৮), মোঃ হোসেল খানের স্ত্রী মোসাঃ সেজমিন বেগম(৩৫), মোঃ নাছির খানের স্ত্রী মোসাঃ তাছলিমা(৪০), নাছির খানের ছেলে মোঃ বাচ্চু খান(১৪)ও মোসাঃ রহিমা বেগম(৬০), বারেক ঘরামীর ছেলে মোঃ মজিবুর রহমান (৩৮) সহ ৭-৮জন সন্ত্রাসীরা নাশকতা, চাঁদাবাজি, জমি দখলসহ প্রায় একাধিক মামলার আসামি তারা। জাকির নিজের অপকর্ম ও দখলবাণিজ্য চালু রাখতে যুবদল থেকে নাম লিখিয়েছেন ছাত্রলীগে। এরপর থেকেই আরও বেপরোয়া হয়ে উঠছেন তিনি।
কিছু দিন আগে ওই জমি দখল করতে গিয়ে মা ও মেয়েকে মেড়ে রক্তাক্ত করে জাকির বাহীনি। তাদের অপকর্ম তুলে ধরে বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হয়। তার পর থেকে ক্ষিপ্ত হয় জাকির বাহীনি এবং বিভিন্ন ভাবে প্রাণ নাশের হুমকি দিয়।
বাবেরগঞ্জে ভূমিদস্যু হিসেবে কুখ্যাত আরও একটি নাম জাকির বাহিনী। এই বাহিনী মূলত ভাড়াটে বাহিনী হিসেবে জোর করে জমি দখলের কাজ করে।

এলাকাবাসী জানান, এই বাহিনীকে ব্যবহার করেই বাকেরগঞ্জে অসহায়দের জমি দখল করে নেয় ভূমিদস্যু জাকির প্রভাবশালী চক্র।
এই ঘটনায় মোঃ আলাউদ্দিনের স্ত্রী মোসাঃ সানজিদা আক্তার বাকেরগঞ্জ থানায় ১২/০৭/ ২০২০ তারিখ সাধারন ডায়েরী করেন যাহার জিডি নং ৪৭৯। এতে আসামীরা আরোও ক্ষিপ্ত হয়ে পরিকল্পিত ভাবে ধারালো অস্ত্রাদী লোহার রড, দা, রামদা ,লাঠি সোটা দিয়ে হামলা করে। বাদী মোকাম বরিশাল বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আমলী আদালতে দন্ডবিধি ১৪৩/৪৪৭/৪৪৮/৩২৩/৩২৪/৩২৫/৩০৭/৩৭৯/৩৫৪/৫০৬ (২) ধারায় মোঃ জাকির খান গ্রেফতার হয়।